ব্লগ তৈরি করার ১০টি সেরা ব্লগিং প্লাটফর্ম

ব্লগ তৈরি করার ১০টি সেরা ব্লগিং প্লাটফর্ম

এই আর্টিকেলে আমরা জানবো ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম গুলো কি কি? মূলত ১০ টি সেরা ব্লগিং প্লাটফর্ম নিয়ে আলোচনা করব। এবং এই ব্লগিং সাইট গুলোতে আপনি সহজেই ব্লগ তৈরি করে আপনার ব্লগিং শুরু করতে পারবেন।

  • 3. উপসংহার
  • ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম বা ওয়েবসাইট কি?

    কিছু কিছু ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে এই উদ্দেশ্যে যাতে সহজে যে কেউ ব্লগ তৈরি করে ব্লগিং করতে পারে। এসব ওয়েবসাইট ব্লগিং করার মাধ্যম বা প্লাটফর্ম হিসেবে পরচিত।

    একটি ব্লগ প্রকৃতপক্ষে একটি ওয়েবসাইট। বিভিন্ন ওয়েবসাইট বিল্ডিং প্লাটফর্ম গুলো ব্লগ ও তৈরি করে থাকে। আমরা সেইসব ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে সেরা প্লাটফর্ম গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে চলুন জেনে নেই ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম বা ওয়েবসাইট গুলো কি কি?

    শুরু করার আগে, আপনারা নিশ্চই জানেন যে ব্লগ কাকে বলে। যদি জেনে না থাকেন তাহলে ব্লগ কি? এবং কত প্রকার? এই আর্টিকেল টি দেখে নিন।

    ব্লগ তৈরি করে ব্লগিং করার সেরা প্লাটফর্ম গুলো নিচে আলোচনা করা হলঃ

    আপনি ইন্টারনেটে সার্চ করলে অনেক ব্লগিং ওয়েবসাইট ও প্লাটফর্ম খুজে পাবেন। এগুলোর মধ্যে সেরা মাধ্যম গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম।

    1. WordPress.org

    নিজস্ব হোস্টিং এর ক্ষেত্রে WordPress.org হলো সেরা ব্লগিং সাইট। এক্ষেত্রে আপনাকে হোস্টিং এবং ডোমেইন কিনতে হবে। পৃথিবীর ৯০% ব্লগই WordPress দ্বারা পরিচালিত। এমন কি এটার চাচাতো ভাই WordPress.com এর থেকেও এটা বেশি জনপ্রিয় এবং শক্তিশালী। এটি হল একটি ওপেন সোর্স কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।

    যেসব ক্ষেত্রে এটি উপযুক্তঃ

    • পারসোনাল ব্লগ
    • বিজনেস/কম্পানি ব্লগ
    • অনলাইন বিজনেস ব্লগ
    • এবং যারা তাদের ব্লগের উপর সম্পূর্ণ কন্ট্রোল চান তাদের জন্যই WordPress.org

    সুবিধাঃ

    • এখানে আপনি আপনার ব্লগের উপর সম্পূর্ণ কনট্রোল রাখতে পারবেন
    • ব্লগ কাস্টমাইজ করার জন্য আছে হাজারো থিম আর প্লগইন।
    • এখানে এডভান্সড SEO সিস্টেম। আপনাকে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর জন্য খাটতে হবে না।
    • আর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এখানে কোনে লিমিটেশন নেই।

    অসুবিধাঃ

    আপনাকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনতে হবে। সর্বনিম্ন ৪০-৫০ ডলার খরচ পড়বে। তাছাড়া আর কোনো অসুবিধা নেই।

    2. WordPress.com

    ফ্রি ব্লগ তৈরির জন্য বেস্ট ওয়েবসাইট বা প্লাটফর্ম হল WordPress.org। এখানে আপনি বিনা পয়সায় একটি WordPress.com সাব-ডোমেইন পেয়ে যাবেন। যা দিয়ে সাথা সাথে ব্লগিং শুরু করে দিতে পারবেন। কিন্তু বেশ কিছু লিমিটেশন রয়েছে এক্ষেত্রে। তবে পরবর্তিতে আপনি চাইলে WordPress.com থেকে আপনার সাইট WordPress.org এ ট্রান্সফার করে লিমিটেশন দূর করতে পারবেন।

    যেসব ক্ষেত্রে এটি উপযুক্তঃ

    • ছোটো শখের ব্লগ
    • যারা শখের বশে ব্লগ তৈরি করতে চান।

    সুবিধাঃ

    • সহজ ইন্সটলেসন
    • অটোমেটিক সিস্টেমে আপনি ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।
    • ব্লক এডিটর এর মাধ্যমে অসাধারন ব্লগ পোস্ট তৈরি করতে পারবেন।
    • আর SEO নিয়ে তো আপনাকে চিন্তা করার কোনো প্রয়োজনই নেই।
    • অটোমেটিক AMP পেইজ জেনারেট হবে।
    • সব কাজ Wordpress.com নিজেই করবে আপনি শুধু নিজের ব্লগ টাকে সুন্দর করে সাজিয়ে যান।

    অসুবিধাঃ

    • ফ্রি একাউন্টে অনেক লিমিটেশন আছে। যেমনঃ প্লাগইন, এডভান্সড থিম, কাস্টম CSS ও Javascript ব্যাবহার করতে পারবেন না।
    • WordPress.com এর লিমিটেশন পুরোপুরি দূর করতে আপনাকে Premium প্লান কিনতে হবে যার মূল্য ৯৬ ডলার খরচ করতে হবে প্রতি বছর।

    3. Wix.com

    এটি ড্রাগ এন্ড ড্রপ ওয়েবসাইট বা ব্লগ বিল্ডার। আপনার যদি কোনে কোডিং জানা না থাকে আপনি Wix.com টি নির্বাচন করতে পারেন আপনার ব্লগ তৈরি করার জন্য। কোডিং ছাড়াই ব্লগ তৈরি করার জন্য এটি বেশ ভালে একটি প্লাটফর্ম।

    যেসব ক্ষত্রে Wix.com উপযুক্তঃ

    • ক্ষুদ্র ব্যাবসার ব্লগ তৈরি করার জন্য
    • অনলাইন আর্ট গ্যালারি ব্লগ তৈরি করার জন্য

    সুবিধাঃ

    • দারুণ সব টেমপ্লেট এবং থার্ড পার্টি অ্যাপস দ্বারা ব্লগ কাস্টমাইজ করতে পারবেন
    • কোনো কোডিং স্কিলের প্রয়োজন নেই কারণ সব কিছুই ড্রাগ এন্ড ড্রপ এর মাধ্যমে করা যাবে
    • ধ্রুত এবং সহজে সেটআপ করা যায়
    • বিল্ট-ইন HTML 5 দ্বারা ডিজাইন তৈরি করার অনেক অপশন আছে।
    • এমন কি আপনি নিজে ডিজাইন করতে না চাইলে আর্টিফিশিয়াল এ.আই দ্বারা অটো ডিজািন করে নিতে পারবেন।
    • আরো থাকছে ফ্রি স্টক ছবির সমাহার

    অসুবিধাঃ

    • বরাবরের মত ফ্রি একাউন্টে অনেক লিমিটেশন রয়েছে। যেমনঃ লিমিটেড ট্রাফিক, wix এর ব্রান্ডিং লোগো ও বিজ্ঞাপন।
    • ডিজাইনের জন্য ফ্রি এ্যাপ গুলো সীমিত।
    • ব্লগ বা ওয়েবসাইট এর টেমপ্লেট নির্বাচন করার পর তা আর পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।
    • এটি ই-কমার্স সাইটগুলোর ক্ষেত্রে সুবিধের নয়, এমন কি পেইড প্লানের ক্ষেত্রেও।
    • তাদের বিভিন্ন সার্ভিস চার্জ এর খরচ অনেক বেশি বাড়িয়ে দেয়। আপনার ব্লগ বা সাইট এবং কন্টেন্ট Wix থেকে অন্য কোনো প্লাটফর্মে মাইগ্রেট করতে পারবেন না।

    4. Joomla.com

    Joomla হলো Wordpress এর মত একটি ওপেন সোর্স কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। এখানে আপনি সব ধরনের ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করতে পারবেন। আামাদের একটি বিশেষ আর্টিকেল Wordpress vs Joomla vs Drupal কোনটি সব থেকে ভালো? পড়তে পারেন।

    যেসব ক্ষত্রে Joomla উপযুক্তঃ

    • বানিজ্যিক ওয়েবসাইট
    • অনলাইন স্টোর
    • যদি আপনার ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভালো জ্ঞান থাকে

    সুবিধাঃ

    • পাওয়ারফুল এবং সহজলভ্য
    • অনেক গুলো প্রফেশনাল টেমপ্লেট রয়েছে এবং সহজে ডিজাইন করা যায়
    • বিভিন্ন ফিচার এবং ফাংশন যোগ করার জন্য রয়েছে দরুণ সব এক্সটেনশন

    অসুবিধাঃ

    • আপনাকে CSS এবং HTML এর উপর ভালো জ্ঞান থাকতে হবে।
    • সিকিউরিটি, কন্টেন্ট ব্যাকআপ এবং পারফরম্যান্স উন্নয়ন সব কাজই আপনাকে করতে হবে।

    5. Medium.com

    মিডিয়াম ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো। বর্তমানে এটি একটি জনপ্রিয় ব্লগিং প্লাটফর্ম এবং সোসাল নেটওয়ার্ক। লেখক, ব্লগার এবং জার্নালিস্টদের কাছে এটি একটি বেশ জনপ্রিয় মাধ্যম। আপনি চাইলে সহজে অন্যের ব্লগে কমেন্ট করতে পারবেন এবং অন্যরা চাইলে আপনার ব্লগে কমেন্ট করে তাদের মতামত জানাতে পারবে। এটি মূলত ব্লগের ভিতর ব্লগ তৈরি করার মত।

    যেসব ক্ষত্রে Medium উপযুক্তঃ

    • যদি আপনি লেখক হিসেবে নিজের পরিচিতি গড়তে চান
    • উন্নত মানের ব্যাকলিংক পাবার জন্য

    সুবিধাঃ

    • শুধু সাইন আপ করলেই আপনার ব্লগ তৈরী হয়ে যাবে।
    • দারুণ ইন্টারফেস এবং কন্টেন্ট ইডিটর ও অসাধারণ
    • এখানে আপনার শুধু একটাি কাজ, কন্টেন্ট বা ব্লগ পোস্ট তৈরি করা।
    • আপনি চাইলে YouTube এবং Twitter থেকে কন্টেন্ট এম্বেড করতে পারবেন।

    অসুবিধাঃ

    • Medium এর সব ব্লগ একই রকম, এখানে কাস্টমাইজেশন বা ডিজাইনিং এর কোনো সুযোগ নেই
    • মার্কেটিং করার সুযোগ নেই
    • ট্রাফিক মিডিয়ম থেকে অন্য কোনো প্লাটফর্মে নেয়ার সুযোগ নেই
    • এখানে মোনেটাইজেশন এর কোনো অপশন নেই
    • এবং আপনার কন্টেন্ট এর উপর মিডিয়াম এর কর্তৃত্ত আছে, মিডিয়াম চাইলে আপনার পোস্ট ডিলিট ও করতে পারে, যদি তা তাদের পলিসির সাথে সাংঘর্ষিক হয় তবে।

    6. Ghost.org

    ব্লগ তৈরি করার এই প্লাটফর্ম টি Javascript দ্বারা তৈরি। এবং এটার একমাত্র লক্ষ্য হচ্ছে ব্লগিং। এটি অনেকটাই ওয়ার্ডপ্রেস এর মতন তবে আরো আধুনিক। Ghost.org এও আপনি হোস্টেড এবং সেলফ-হোস্টেড দুই রকমের ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

    যেসব ক্ষত্রে Ghost উপযুক্তঃ

    যেসকল ব্লগার আধুনিক টেকনিক্যাল সলিউশন নিয়ে পরীক্ষামূলক ব্লগ তৈরি করতে চান তাদের জন্য Ghost

    সুবিধাঃ

    • ব্লগিং করার জন্য দারুণ পরিবেশ
    • পরিষ্কার এবং সহজ ইন্টারফেস
    • ব্লগিং এর সময় ব্লগের লাইভ প্রিভিউ দেখতে পারবেন
    • এটি খুবই গতিশীল কারণ এটি Javascript দ্বারা তৈরি
    • হোস্টেড ভার্সনে সেট-আপ করার প্রয়োজন নেই
    • বিল্ট-ইন SEO এবং সোশাল মিডিয়া
    • এবং বিল্ট-ইন AMP সিস্টেম

    অসুবিধাঃ

    • কাস্টোমাইজেশন এর ক্ষেত্রে জটিলতা আছে
    • সীমিত কনফিগারেশন এবং কাস্টমাইজেশন
    • থিমের সংখ্যাও কম
    • Ghost এর হোস্টেড ভার্সন সেট-আপ করা জটিল

    7. Squaresapce.com

    এটি Wix.com এর মতই Drag and Drop ওয়েবসাইট বা ব্লগ বিল্ডার। কোনে প্রকার HTML, PHP, CSS, JAVASCRIPT এর জ্ঞান ছাড়াই আপনি এখানে ব্লগ বানাতে পারবেন। মূলত অনলাইন-স্টোর, ই-কমার্স ব্লগ Squarespace.com এ বানাতে পারবেন।

    যেসব ক্ষত্রে Squarespace উপযুক্তঃ

    • বিজনেস ব্লগ
    • ই-কমার্স ব্লগ
    • পোর্টফলিও

    সুবিধাঃ

    • সহজে ব্যাবহার যোগ্য
    • প্রফেশনাল ডিজাইন টেমপ্লেট রয়েছে
    • এই প্লাটফর্ম এ বিল্ট-ইন SSL এনক্রিপসন রয়েছে
    • অনলাইন স্টোর তৈরি করা সম্ভব
    • হোস্টিং এবং কাস্টম ডোমেইন কেনা যায়
    • ২৪/৭ লাইভ সাপোর্ট সিস্টেম

    অসুবিধাঃ

    • সীমিত ফিচারস, Squarespace যতটুকু দিয়েছে ততটুকু
    • সল্প কি টুলস রয়েছে
    • পারসোনাল প্লানে ২০ টি পেইজ এবং ২ জন কন্ট্রিবিউটর পাবেন

    8. Weebly.com

    ওয়েব-বেজড ওয়েবসাইট বিল্ডার হলো Weebly.com। একটি টেমপ্লেট নির্বাচন করুন আর ব্লগ বানানো শুরু করে দিন। ব্লক এডিটরের মাধ্যমে সহজে ব্লগ কাস্টমাইজ করতে পারবেন।

    যেসব ক্ষত্রে Weebly উপযুক্তঃ

    • প্রাতিষ্ঠানিক ব্লগ
    • অনলাইন পোর্রফলিও
    • যদি আপনার কোডিং নলেজ না থাকে

    সুবিধাঃ

    • কাজ করা সহজ, ড্রাগ এন্ড ড্রপ সিস্টেম
    • মোবাইল এ্যাপের মাধ্যমে কাজ করা যায়
    • SEO উন্নয়ন টুলস এবং Google Analytics সংযোগ করা যায়

    অসুবিধাঃ

    • নতুন টুলস যোগ করা যায় না
    • অল্প কয়েকটি থার্ড পার্টি টুলস রয়েছে
    • ব্লগ সাইট কন্টেন্ট এক্সপোর্ট করা যায় না

    9. Blogger.com

    blogger.com হল গুগল এর ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম। এখানে আপনাকে ব্লগ তৈরি করার জন্য ভালো জ্ঞান থাকতে হবে। এমনকি SEO টাও আপনাকে নিজে থেকে ডেভেলপ করতে হবে।

    যেসব ক্ষত্রে Blogger উপযুক্তঃ

    • শখের ব্লগ
    • ব্যাক্তিগত ব্লগ

    সুবিধাঃ

    • এটার সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো এখানে বিনামূল্যে ব্লগ তৈরি করতে পারবেন
    • হোস্টিং, মেইনটেইনেন্স এর ঝামেলা নেই
    • গুগলের সব প্রোডাক্ট ব্যাবহার করতে পারবেন
    • মোবাইব অপটিমাইজড টেমপ্লেট রয়েছে
    • ভালো ট্রাকিং এবং কমেন্ট স্পাম ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম রয়েছে
    • সবচেয়ে আকর্ষণীয় সুবিধা হলো Google Adsense এর মাধ্যমে ব্লগ মনিটাইজ করতে পারবেন

    অসুবিধাঃ

    • এডিটং টুলস্ পুরোনো আমলের
    • নতুন ফিচার যোগ করার উপায় নেই
    • ডিজাইনিং অপশন কম
    • যদিও গুগল ব্লগার আপডেট করছে তারপরও আধুনিকতার কথা চিন্তা করলে তা যথেষ্ট নয়

    10. Tumblr.com

    মাইক্রো ব্লগ তৈরি করার জন্য Tumbler.com একটি সেরা ওয়েবসাইট। এটি বেশ জনপ্রিয় একটি ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম। এটি মিডিয়ামের মতই "ব্লগের ভিতর ব্লগ"। আপনি এর সাব ডোমেইনে ব্লগ খুলে তাতে লেখালেখি করতে পারবেন এবং প্রচার করতে পারবেন।

    যেসব ক্ষত্রে Tumblr উপযুক্তঃ

    • ব্যাক্তিগত ব্লগ
    • মাইক্রো ব্লগ
    • শখের ব্লগ

    সুবিধাঃ

    • ব্লগ এবং ব্লগিং ফ্রি
    • সহজে ব্যাবহার করা যায়
    • আপনি চাইলে হেস্টিং কিনতে পারবেন
    • সোসাল ফিচার রয়েছে, চাইলে রি-ব্লগিং এবং সেয়ার করা যায়
    • সহজে মাল্টিমিডিয়া পাবলিশ করা যায়
    • ডিজাইন করার জন্য অনেক অপশন রয়েছে

    অসুবিধাঃ

    • যে সকল ফিচার রয়েছ, সেগুলো ছাড় নতুন করে বৃদ্ধি করার সুযোগ নেই
    • কন্টেন্ট ব্যাকআপ করা এবং অন্য প্লাটফর্মে ব্যাবহার করার সুযোগ নেই

    উপসংহারঃ

    আশা করি আপনারা এখন ব্লগ তৈরি করার প্লাটফর্ম বা ওয়েবসাইট গুলো কি কি?এই প্রশ্নর উত্তর স্পষ্ট আকারে আপনাদের উপস্থাপন করতে পেরেছি। কোথাও বুঝতে সমস্যা হলে বা কোনো প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।