ব্লগ কত প্রকার?

ব্লগ কত প্রকার?

এই আর্টিকেল থেকে আমরা জানবো ব্লগ কি? এবং ব্লগ কত প্রকার? ইন্টারনেটের দুনিয়ায় একটি অন্যতম বিষয়বস্তু হল ব্লগ। এই ব্লগ আসলে কি এবং কত প্রকারের ব্লগ আছে তা নিয়ে এখানে বিস্তারিত বলোচনা করা হল।

ব্লগ কি?

প্রত্যেকটি ব্লগি আসলে একেকটি ওয়েবসাইট। ব্লগ বা Blog শব্দটি এসেছে ইংরেজি শব্দ Weblog (ওয়েবলগ) থেকে। blog মূলত ব্লগ হল ব্যাক্তিগত দিনলিপি বা ব্যক্তিকেন্দ্রিক পত্রিকা। নিজের মত করে নিজের অভিব্যক্তি ইন্টারনেটের দুনিয়ায় প্রকাশ করার মাধ্যমকেই ব্লগ বলে। আর যে আর্টিকেল বা লেখা গুলো ব্লগে পোস্ট করে এবং আপডেট করার অধিকার রাখে তাকে বলা হয় ব্লগার

Read More:

ব্লগে বিভিন্ন বিষেয় লেখালেখি করতে পারেন।অর্থাৎ আপনার ইচ্ছামত যেকোনো বিষয়বস্তুর উপর লিখতে পারবেন। নিচে কয়েকটি বিষয়বস্তুর উদাহরণ দেওয়া হলঃ

  • স্বাস্থ্য
  • ফিটনেস ও ওজন নিয়ন্ত্রণ
  • সাইন্স
  • টেকনোলজি
  • রূপচর্চা ও সৌন্দর্য
  • খেলাধুলা
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ব্লগিং
  • অনলাইনে বা ইন্টারনেটে অর্থ উপার্জন
  • ট্রাভেলিং
  • বিভিন্ন খাবার
  • খাবার রেসিপি
  • .....ইত্যাদি।

ইংরেজি ভাষায় ব্লগিং এর বিষয়বস্তু গুলোকে বলা হয় Niche (নিস)। যে বিষয়ের উপর আপনার দক্ষতা ও জ্ঞান রয়েছে সে বিষয়ে লেখালেখি করাই উত্তম। ব্লগ তৈরীর ইতিহাস এখানে কোনো আলোচনা করবো না। তবে আপনারা চাইলে মুক্ত জ্ঞানকোষ Wikipedia থেকে ব্লগের ইতিহাস জেনে নিতে পারেন।

ব্লগ কত প্রকার?

উদ্দেশ্য এর উপর ভিত্তি করে ব্লগ মূলত ছয় প্রকার।

1. ব্যাক্তিগত ব্লগঃ

আপনি যদি আপনার নির্বাচিত বিষয়বস্তুর উপর লেখালেখির কাজ করতে চান তাহলে আপনার ব্লগটি হচ্ছে ব্যাক্তিগত ব্লগ। সেটা যে যেকোনো বিষয় হতে পারে। আপনার শখের যে কোনো বিষয় নিয়েও লিখতে পারেন। কোনো বাধা ধরা নিয়ম নেই।

২। বিজনেস ব্লগঃ

আপনি যদি অনলাইনে ব্যাবসা বা আপনার কোম্পানির প্রচার ও সার্ভিস দিতে চান তাহলে ব্যাবসাভিত্তক বা কম্পানি ব্লগ তৈরি করবেন। ধরুন আপনার ক্ষুদ্য ব্যাবসা বা প্রতিষ্ঠান আছে। অনলাইনে বপনার এই ব্যাবসা বা প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি বা ব্রান্ডিং গড়ে তোলার জন্য আপনি বিজনেস ব্লগ তৈরি করতে পারেন।

3. প্রফেশনাল ব্লগঃ

প্রফেশনাল ব্লগ হলো অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্যে ব্লগ তৈরি করা। আপনি যদি আপনার ব্লগ থেকে অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্যে ব্লগ সম্পাদনা করেন তবে সেটাকে প্রফেশনাল ব্লগ বলে।

4. নিস ব্লগঃ

নিস (Niche) হলো, কোনো একটি বৃহৎ টপিক, যেখানে আরো অনেক ক্ষুদ্র টপিক আছে, এই ক্ষুদ্র টপিক গুলোই হল এক একটি নিস। যেমনঃ খেলাধুলা একটি বৃহৎ টপিক এবং ক্রিকেট হল এই বৃহৎ টপিকের নিস বা ক্ষুদ্র টপিক।

5. রিভার্স ব্লগঃ

"ব্লগের ভিতর ব্লগ" অর্থাৎ একটি ব্লগ যেখানে যে কেউ ব্লগ তৈরি করে ব্লগিং করতে পারে। এটাকে রিভার্স ব্লগ বা গেস্ট ব্লগিং ও বলা হয়ে থাকে।

6. এফিলিয়েট ব্লগঃ

এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য যে ব্লগ তৈরি করা হয় তাকে এফিলিয়েট ব্লগ বলে। সহজ ভাষায় এফিলিয়েট হলো অন্যের প্রডাক্ট অপনার মাধ্যমে বিক্রি করা। এখানে আপনি একজন মাধ্যম। আপনি এই প্রডাক্টগুলো বিক্রি করার জন্য যে ব্লগ তৈরি করবেন সেটাই এফিলিয়েট ব্লগ।

7. মিডিয়া ব্লগঃ

বিভিন্ন মিডিয়ার উপর ভিত্তি করে যে ব্লগ বানানো হয় তাকে মিডিয়া ব্লগ বলে। মিডিয়া বলতে সাধারণত মুভি, মিউজিক, ফটো, পিডিএফ বই ইত্যাদিকে বুঝানো হয়।

8. ফ্রিল্যান্স ব্লগঃ

বিশেষ করে ওয়েব ডেভেলপার বা সফটওয়ার ডেভ রা যখন তাদের ফ্রিল্যান্স কাজের প্রচার করার জন্য কোনো ব্লগ তৈরি করে তখন সেটাকে আমরা ফ্রিল্যান্স ব্লগ বলে। এক্ষেত্রে একজন ফ্রিল্যান্সার তার কাজের যোগ্যতা এবং সার্ভিস গুলো ব্লগে তুলে ধরেন।

9. পোর্টফলিও ব্লগঃ

নিজের পরিচিতি বিষয়ক ব্লগই হল পোর্টফলিও ব্লগ। এটা মূলত আপনার অনলাইন এবং মডার্ণ CV। ফ্রিল্যান্স জবের ক্ষেত্রে বা আপনার ব্যাবসার ক্ষেত্রে ক্লায়েন্টের জন্য আপনি এটি ব্যাবহার করতে পারেন।

শেষকথাঃ

আসা করি সহজ কথায় ব্লগ কি? এবং ব্লগ কত প্রকার তা আপনাদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। তারপরও কোনো কিছু না বুঝে থাকলে বা ব্লগ সম্পর্কিত কোনে প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।